Faridpur Phone Guide


ফরিদপুরের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

বিট্রিশ শাসন আমলে সৃষ্ট একটি অন্যতম প্রাচীন জেলার নাম ফরিদপুর। অনেক আউলিয়া-দরবেশ, রাজনীতিক, পুন্যাত্নার আবাসভূমি হিসাবে এ অঞ্চল অত্যন্ত সুপ্রসিদ্ধ। এ অঞ্চলের পূর্বনাম ছিল ’ফতেহাবাদ’। প্রখ্যাত সাধক এবং দরবেশ খাজা মাঈনুদ্দিন চিশতী(রহঃ) এর শিষ্য শাহ ফরিদ(রহঃ) এর নাম অনুসারে এ জেলার নাম করন করা হয় ফরিদপুর। ফরিদপুর জেলার প্রতিষ্ঠা সন ১৭৮৬ হলেও তখন এটির নাম ছিল জালালপুর এবং এর প্রধান কার্যালয় ছিল ঢাকা। ১৮০৭ খ্রিঃ ঢাকা জালালপুর হতে বিভক্ত হয়ে এটি ফরিদপুর জেলা নামে অভিহিত হয় এবং হেডকোয়াটার স্থাপন করা হয় ফরিদপুর শহরে। বৃহত্তর ফরিদপুর জেলা পাঁচটি জেলায় রুপান্তরিত হয়েছে। জেলাগুলো হচ্ছে ফরিদপুর, রাজবাড়ী, গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর ও শরীয়তপুর।


ফরিদপুর জেলায় হাজী শরীয়তুল্লাহর নেতৃত্বে ফরায়েজী আন্দোলন ব্যাপক প্রসার লাভ করে। এক সময় গড়াই, মধুমতি, বারাসিয়া, চন্দনা, কুমার প্রভৃতি নদীর তীরবর্তী জমিতে নীলচাষ করা হত। আলফাডাঙ্গা ও মীরগঞ্জে প্রধান কুঠি স্থাপন করা হয়েছিল। এ জেলার ৫২ টি নীলকুঠি এর অন্তর্ভুক্ত ছিল। প্রধান ম্যানেজার ছিলেন ডানলফ। অন্যান্য জেলার ন্যায় ফরিদপুর জেলাতেও নীল বিদ্রোহ হয়েছে। এর নেতৃত্ব দেন দুদু মিয়া। ফরিদপুর জেলার আয়তন ২০৭২.৭২ বর্গকিলোমিটার। জেলা শহর বর্তমানে কুমার নদীর তীরে অবস্থিত। ফরিদপুর পৌরসভা সৃষ্টি হয় ১৮৬৯ সালে। এর আয়তন ২০.২৩ বর্গকিলোমিটার। ফরিদপুর জেলার উত্তরে রাজবাড়ী এবং মানিকগঞ্জ জেলা, পশ্চিমে নড়াইল, মাগুরা, দক্ষিনে গোপালগঞ্জ জেলা, পূর্ব ঢাকা, মুন্সীগঞ্জ এবং মাদারীপুর জেলা। ফরিদপুর জেলায় মোট পাঁচটি পৌরসভা, ৩৬ ওয়ার্ড, মহল্লা ৯২ টি, ইউনিয়ন ৭৯ টি, গ্রাম ১৮৫৯ টি। মোট উপজেলা ৯ টি। সেগুলো হচ্ছেঃ আলফাডাঙ্গা, বোয়ালমারী, মধুখালী, সালথা, নগরকান্দা, ভাঙ্গা,সদরপুর, চরভদ্রাসন ও ফরিদপুর সদর।

Priofaridpur on facebook